dainik shomoy | logo

১১ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ | ২৬শে নভেম্বর, ২০২০ ইং

কালীগঞ্জে পিরোজপুর মহাশ্মশানের জমিতে পার্ক তৈরীর চেষ্টা হাজারো মানুষের প্রতিবাদে অবশেষে পন্ড

প্রকাশিত : অক্টোবর ৩১, ২০২০, ০২:৩৭

কালীগঞ্জে পিরোজপুর মহাশ্মশানের জমিতে পার্ক তৈরীর চেষ্টা হাজারো মানুষের প্রতিবাদে অবশেষে পন্ড

ডেস্ক রিপোর্ট : সাতক্ষীরার কালীগঞ্জ উপজেলার শত বছরের ঐতিহ্যবাহী পিরোজপুর মহাশশ্মানে জেলা প্রশাসক জনাব এস. এম. মোস্তফা কামাল, উপজেলা চেয়ারম্যান জনাব সাঈদ মেহেদি, উপজেলা নির্বাহী অফিসার জনাব মো: মোজাম্মেল হক রাসেলের নাম ফলক ব্যবহার করে গত ২৬/১০/২০২০ তারিখে মুজিব সেঞ্চুরি ওয়াটার ইকো পার্কের ভিক্তি প্রস্তার স্থাপিত হয়।

২৭/১০/২০২০ তারিখে স্থানীয় সনাতন ধর্ম অবলম্বনী মানুষদের দৃষ্টি গোচর হলে ১৮ টি গ্রামের সকলের মাঝে ক্ষোপের সঞ্চার হয়। সাথে সাথে মানুষ পিরোজপুর মহাশশ্মানে ছুটে যান। মহাশশ্মানের সীমানার মধ্যে ভিক্তি প্রস্তারের নাম ফলক দেখে সবাই ক্ষোপে ফেটে পড়েন। এবং সকলে মিলে বিষয়টি ১০নং ধলবাড়িয়া ইউনিয়ন আওয়ামিলীগের সভাপতি, জননেতা বাবু সজল মুখার্জি কে জানান।

খবর পেয়ে কালিগঞ্জ উপজেলার পূজা উৎযাপন পরিষদের সহ-সভাপতি বাবু সজল মুখার্জী – উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, সাতক্ষীরা-৪ আসনের মাননীয় সংসদ সদস্য, পূজা উৎযাপন পরিষদের উপজেলা ও জেলা নেতৃবৃন্দকে অবহিত করেন।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার জনাব মো: মোজাম্মেল হক রাসেলের সাথে বিষয়টি পরামর্শ করে ভিক্তি প্রস্তারের নাম ফলকটি বাবু সজল মুখার্জীর নেতৃত্বে, কালীগঞ্জ উপজেলা সনাতন ধর্মের সভাপতি অধ্যাপক সৎত কুমার, সাধারণ সম্পাদক অসিত সেন, মথুরেশপুর ইউনিয়নের ইউপি চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান গাইন বাংলাদেশ সাম্যবাদী বলর কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য কমরেড তারিকুল ইসলাম এর উপস্থিতিতে স্থানীয় হিন্দু-মুসলিম সহ প্রায় হাজার মানুষের সমাগমে সরিয়ে ফেলা হয়। এবং মহাশ্মশানের সীমানা নির্ধারণ করে সাইনবোর্ড টানিয়ে দেওয়া হয়।

কিন্তু ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে সকল শ্রেণির জনগনের মনে এই প্রশ্ন থেকে যায় যে, মহাশশ্মানে জমি দখল করে পার্ক স্থাপনের মতো জঘন্যতম সিন্ধান্ত কে বা কারা নিতে পারে। এই ঘৃন্য বিষয় নিয়ে এলাকার সর্বস্তরের মানুষের মনে নিন্দার ঝড় বয়ে যাচ্ছে।




সম্পাদক ও প্রকাশক :

অফিস লোকেশন:

ফোন:

ই-মেইল:

Copyright  @ JagoBarta.  All right reserved. Website Hosted by www.bdwebs.com